কেন শতকরা নব্বই শতাংশ মানুষই ক্যাপিটাল হারায়? | Bangladesh Share Market | Biniogkari | No.1 >> বাংলাদেশে প্রথম পুঁজি বাজার সম্পর্কিত ওয়েবসাইট | বিনিয়োগকারী

কেন শতকরা নব্বই শতাংশ মানুষই ক্যাপিটাল হারায়? | Bangladesh Share Market

Date:December 03, 2019 createবিনিয়োগকারী.কম



কজন স্মার্ট বিনিয়োগকারী হওয়ার জন্য মানুষ শেয়ারবাজারে ( bangladesh sharebazar) পথে যাত্রা শুরু করে। একটি পরিসংখ্যান দেখা গিয়েছে যে, ৮০ শতাংশ বিনিয়োগকারী শেয়ারবাজারে অর্থোপার্জনে ব্যর্থ হন। তার মানে, ৮০ শতাংশ বিনিয়োগকারী শেয়ার বাজারে অর্থ হারান। আবার, ১০ শতাংশ বিনিয়োগকারী হঠাৎ লাভ-লোকসান করে। আর অবশিষ্ট ১০ শতাংশ বিনিয়োগকারী ধারাবাহিক ভাবে অর্থোপার্জন করে। যাদেরকে আমরা স্মার্ট বিনিয়োগকারী বলে থাকি।



এই পরিসংখ্যানটির সম্পর্কে একটি আকর্ষণীয় বিষয় হ'ল এটি কোন ভৌগলিক অঞ্চল, বয়স, লিঙ্গ বা বুদ্ধি উপর নির্ভর করে না। যারা ক্যাপিটাল মার্কেট অভিজ্ঞ অথবা শীর্ষ ১০ শতাংশ স্মার্ট বিনিয়োগকারী মধ্যে অবস্থান করে তারা প্রত্যেকেই শেয়ার বাজারে ট্রেডিংয়ের সময় ক্রমাগত ভাবে অর্থোপার্জন করে। তবে খুব কম বিনিয়োগকারী এই বিষয় সম্পর্কে জ্ঞান অর্জনের জন্য “সময় এবং প্রচেষ্টা” প্রয়োগ করতে ব্যর্থ হয়।

শেয়ার বাজারে একজন স্মার্ট বিনিয়োগকারী হওয়ার জন্য, "একজন সাধারন বিনিয়োগকারী যা করে না! আপনারকে তা করতে হবে"। এই কথাটি শুনে আপনার কাছে একটি সরল দৃষ্টি ভঙ্গির মতো মনে হতে পারে। কিন্তু তার সঠিক ব্যবহার আপনাকে অপ্রত্যাশিত সাফল্য এনে দিতে পারে।

এখন, আপনার কাছে আমার একটি সহজ প্রশ্ন রইলো তা হল “ আপনি যা জানেন না তা কি আপনি জানেন ! ”

এই নিবন্ধে, আমি আলোচনা করব যে, কেন বেশিরভাগ বিনিয়োগকারী শেয়ার বাজারে (share bazar) লেনদেন করার সময় নিয়মিত ভাবে অর্থোপার্জনে ব্যর্থ হয় এবং সেই সাথে ৯০ শতাংশ সাধারণ বিনিয়োগকারী হতে কিভাবে নিজেকে ১০ শতাংশ স্মার্ট বিনিয়োগকারী সাথে যুক্ত থাকা যায়। এছারা, কিভাবে একজন অনভিজ্ঞ ব্যক্তি (টেকনিক্যাল) এবং (ফান্ডামেন্টাল) এনালাইসিস ব্যবহারের মাধ্যমে শেয়ার নির্বাচন করবেন। সেই সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা হবে।

bangladesh sharebazar
Dhaka Stock Exchange
শেয়ার বাজারে সাফল্যের সাথে ট্রেডিং করার জন্য তিনটি মূল পদক্ষেপ মূলত একজন সফল বিনিয়োগকারী হওয়ার জন্য কাজ করে থাকে। এটা কে আমরা বলে থাকি সাফল্যের সমীকরণ।

জ্ঞান + অভিজ্ঞতা + প্রচেষ্টা = সাফল্য 

একজন স্মার্ট বিনিয়োগকারী কখনও বলবে না যে তারা ভাগ্যের মাধ্যমে সাফল্য অর্জন করেছে। তারা সকলেই কিছু পদক্ষেপ অনুসরণ করেছিলেন যার মধ্যমে তাঁদের ভাগ্যের পরিবর্তন এসেছে। যেমন ধরুন,

  • পদক্ষেপ ১ঃ সঠিক জ্ঞান অর্জন করেছে।
  • পদক্ষেপ ২ঃ জ্ঞান অর্জন করার পরে তারা তাদের অভিজ্ঞতা কে বিকশিত করেছে।
  • পদক্ষেপ ৩ঃ যদি কোনও বিনিয়োগকারী তাদের ব্যবসায়ের ( Share Bazar Business) লক্ষ্য অর্জনের জন্য প্রচেষ্টা করতে সম্মত না হন তবে উপরে বর্ণিত দুটি পদক্ষেপ কোনও কাজে আসবে না।

কত বছর সময় লাগে?| Time - Dhaka Stock Exchange - DSE


একটি পরিসংখ্যানে দেখা গিয়েছে যে, শেয়ার বাজারে ( Capital Market in Bangladesh) ট্রেডিং করতে দুই থেকে পাঁচ বছরের অভিজ্ঞতা লাগে। আমরা জানি, একজন সফল বিনিয়োগকারী হওয়ার জন্য "কঠোর পরিশ্রমের বিকল্প নেই " কিন্তু আমি বলব "স্মার্ট পরিশ্রমের কোন বিকল্প নেই"। যাই হোক, একজন পেশাদার এবং দক্ষ স্মার্ট বিনিয়োগকারী হওয়ার জন্য কোনও সংক্ষিপ্ত পথ অথবা " শর্টকাট কৌশল (Shortcut Technique) " নেই

" সবচেয়ে বড় ঝুঁকি হলো, তুমি কি করছ সেটা না জানা "
- ওয়ারেন বাফেট

শেয়ার বাজারে কাজের জন্য বাস্তব জীবনে, স্ব-শিক্ষার (Self Education) টা খুব জরুরী। তবে শেয়ার বাজারে ( sharebazar) ট্রেডিং করার সময় ধারাবাহিক ভাবে লাভজনক আয়ের প্রক্রিয়াটির শেখার জন্য অথবা “জ্ঞান অর্জন” করতে আপনার প্রতিভাবান বা রকেট বিজ্ঞানী (Rocket Scientist) হতে হবে না। এটি একটি খুব সহজ প্রক্রিয়া। আপনি যদি একটু কষ্ট করে এটি আয়ত্ত করার চেষ্টা করেন তাহলে খুব সহজেই আপনি ধারাবাহিক ভাবে অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন।

জটিল করার প্রবণতা! | Tendency to Complicate - Share Bazar


“ বেশিরভাগ মানুষের স্বভাব হলো, সহজ জিনিসকে জটিল করে ফেলা ”
- ওয়ারেন বাফেট

নতুন বিনিয়োগকারী যখন ক্যাপিটাল মার্কেটে (capital market in bangladesh) প্রবেশ করে তখন তারা বাজার প্রক্রিয়াটিকে জটিল করার প্রবণতা দেখায়। এটি আমরা প্রধানত দুটি বিষয় উপর ভিত্তি করে দায়ী মনে করি।

  • (প্রথমত, ) আর্থিক পরিষেবা প্রতিষ্ঠানের বিশেষজ্ঞরা যারা ছোট বিনিয়োগকারীদের জন্য শেয়ার বাজারে (Share Bazar) বিনিয়োগ করে থাকেন তারা (“জটিল ও রহস্যময় ভাব ভঙ্গিতে ভরপুর” ) এবং অন্যদিকে কেবল তারা তাদের জন্য কাজ করে যারা জ্ঞানী এবং উচ্চ-পদস্থ কোন কর্মকর্তা অথবা উচ্চ শিক্ষিত।

  • (দ্বিতীয়ত, ) বিজ্ঞাপন সংস্থাগুলি অথবা কোন সোশ্যাল মিডিয়া মাধ্যমে যারা প্রচার করেছে যে, ক্যাপিটাল মার্কেটে (Capital Market )সর্বোচ্চ প্রফিট করার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা রয়েছ, যেখানে আপনার কোন "জ্ঞান, অভিজ্ঞতা এবং সময় " দেয়া লাগবে না । শুধুমাত্র তাদেরকে একবার চিনে রাখুন।

তারা কি আসলেই সত্য কথা বলছে ? প্রশ্ন রইল আপনাদের কাছে ! কমেন্টের মাধ্যমে আমাদের জানাবেন ।

বাস্তবে তারা যা করছে, তা হল কিছু ব্যয়বহুল সেমিনার মাধ্যমে তাদের পকেট গুলি পূরণ করে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কে ধরিয়ে দেওয়া হছে জত সব সস্তা লেকচার (Cheap lecture)। আশ্চর্যজনক হলেও সত্য যে , যারা এই লেকচারগুলো দিচ্ছেন তারা হলেন উচ্চ-পদস্থ কোন কর্মকর্তা অথবা উচ্চ শিক্ষিত লোক।

 জ্ঞানের অভাব | Lack of Knowledge - Dhaka Stock Exchange


"ব্যাবসার ক্ষেত্রে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার আগে পেছনের ভুল থেকে শিক্ষা নেয়া বেশি জরুরী"
- ওয়ারেন বাফেট



ক্যাপিটাল মার্কেটে (Capital Market in Bangladesh) শেয়ার কেনার সময় বেশিরভাগ বিনিয়োগকারীরা অর্থোপার্জন ব্যর্থ হওয়ার মুল এবং একমাত্র বৃহত্তম কারণ “জ্ঞানের অভাব”। আমি জানি, আমার এই কথায় আপনারা অনেকেই একমত হবেন না। কিন্তু আমাদের বাস্তবতা মেনে নিতে হবে।

এখন, আমরা এই সেক্টরে (capital market research) শিক্ষা অর্জনকে দোষারোপ করতে পারি! কারণ যখন একজন সাধারণ বিনিয়োগকারী শিক্ষার জন্য চেষ্টা করে তখন তারা সমস্ত ভুল জায়গাগুলির দিকে তাকায় এবং শুধুমাত্র সেই কারণে তাদের শিক্ষার মান অনেকটা নিম্নমানের হয়ে থাকে ।
"যথাযথ দামে একটি ভালো কোম্পানি কেনা, ভালো দামে যথাযথ কোম্পানি কেনার চেয়ে উত্তম।"
- ওয়ারেন বাফেট

একটি পরিসংখ্যানে জানা গিয়েছে যে, একজন সাধারণ বিনিয়োগকারী তারা কিছু পরিমাণ লাভের জন্য কেবল শেয়ার ক্রয়-বিক্রয় করে থাকেন। কিন্তু তারা যা ক্রয়-বিক্রয় করছে এমন স্টকগুলি কীভাবে বিশ্লেষণ করেছিল সে সম্পর্কে তাদেরকে প্রশ্ন করা হলে, অনেকে উত্তরে বলেন যে, তারা “ অমুক তমুক” সংবাদপত্র, অথবা সামাজিক মাধ্যম এবং স্পামিং ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনগুলো পড়েন। মাঝে মাঝে তাদের ব্রোকারের সাথে অনলাইন চ্যাটের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গুলো গ্রহণ করেন যা খুবই দুঃখজনক!। এছাড়া, কোন সাধারণ বিনিয়োগকারী জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে, তারা প্রকাশ করে যে, যখন কোন শেয়ার মূল্যায়নের ( Capital Market Research) জন্য প্রয়োজনীয় মৌল ভিত্তিক তথ্য সম্পর্কে মোটামুটি ভাবে ধারণা পেয়েছিল। যা খুবই হতাশাজনক! ।

তারা মনে করে, শেয়ার মার্কেটে আগে যা ঘটেছিল তা আবার বর্তমানে ও ভবিষ্যৎতে পুনরাবৃত্তি ঘটবে না। সহজ কথায় বলতে গেলে, “ Past is Past ” । কিন্তু আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলব “ Past is First “

অন্য দিকে, কোনও চার্টের ব্যাখ্যা বোঝার সময় তারা কীভাবে দেখছিল সে সম্পর্কে তাদের সামান্যতম জ্ঞান ছিল না। এবং অর্থ ব্যবস্থাপনার (Portfolio Management) বিষয়ে কোণ ধরনের পরিকল্পনা ছিল না।

"মানুষ নিজের পেছনে যে বিনিয়োগ করে, সেটাই তার সবচেয়ে লাভজনক বিনিয়োগ"
- ওয়ারেন বাফেট

পরিশেষে বলা যায়, একজন শিক্ষিত বিনিয়োগকারী অবশ্য একটি লাভজনক ট্রেডিং পরিকল্পনা গুরুত্ব বুঝতে পারে। তারা কেন ক্রয়-বিক্রয় করছে? তা জানার জন্য কোন শেয়ারকে কীভাবে বিশ্লেষণ করতে হবে এবং তারা কীভাবে ট্রেডিং পরিচালনা করবে ? সে বিষয়ে স্বচ্ছ ধারণা থাকতে হবে।

আরও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, অর্থ পরিচালনা সংক্রান্ত বিধিগুলিও বাস্তবায়িত করে যেমন স্টপ-লোস এবং পজিশন সাইজিং ( Positioning Sizing ) মাধ্যমে তাদের বিনিয়োগের ঝুঁকি হ্রাস হতে পারে। এতে করে অল্প পরিশ্রমে বেশি লাভ অর্জন করতে পারবে। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের ইকোনোমিক ইন্ডিকেটর বুঝতে হবে। টেকনিকাল এনালাইসিস (Technical Analysis) মার্কেট সেন্টিমেন্ট (Market Sentiment)বুঝতে হবে।


অবাস্তব প্রত্যাশা |Unrealistic Expectations-DSE Share Market



"দাম হলো আপনি যা পরিশোধ করেন। আর মূল্য হলো যা আপনি পান।"
- ওয়ারেন বাফেট

আমরা জানি, শেয়ার বাজারে ট্রেডিং করা অনেক ঝুঁকির সাথে জড়িত। তবুও বাজারের প্রতি আকৃষ্ট হওয়া বেশিরভাগ বিনিয়োগকারী সর্বোচ্চ ঝুঁকি নিতে ইচ্ছুক। তারা বিশ্বাস করে যে, কয়েকটি বই পড়ে বা একটি সাপ্তাহিক কোর্সে অংশ নিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থের মালিক হওয়া যাবে ।


প্রকৃতপক্ষে, অনেক শেয়ার ব্যবসায়ী তাদের প্রচেষ্টা মাধ্যমে লাভের আশায় কিছু কৌশল( টিপস) ব্যবহার করে শেয়ার বাজারে প্রথম দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে শুধুমাত্র তাত্ক্ষণিক সন্তুষ্টি অর্জনের চেষ্টা করে। কিন্তু দুঃখের বিষয় হল, অনেক অবাস্তব প্রত্যাশার উপর তাদের কষ্টের উপার্জিত সঞ্চয় হারায়।

জ্ঞান হ'ল সবকিছু। তবে ট্রেডিং প্রসঙ্গে আমরা বিশ্বাস করি তা হ'ল “জ্ঞানের সঠিক প্রয়োগ” । যা আপনাকে এনে দিতে পারে সীমাহীন অর্থ।

একটি আপট্রেন্ড (Uptrend) বাজারে ভাগ্য ছাড়াই জ্ঞানের মাধ্যমে লাভজনক ভাবে অর্থোপার্জন করা যায় । শক্তিশালী আপট্রেন্ড বাজার ক্ষেত্রে আমাদের ভুলগুলো আড়াল করে রাখে। এ কারণেই আমরা বলি যে আপনি যদি দু'বছরের বেশি সময় ধরে শেয়ার বাজারকে সফলভাবে ব্যবসা না করে থাকেন। তবে আপনি নিজেকে সফল বিনিয়োগকারী বিবেচনা করতে পারবেন না।

বাংলাদেশের এমন লোকের কোন অভাব নাই যে, আপনাকে কীভাবে ট্রেডিং করতে হয় তা শেখাতে চায় এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্র শিক্ষা টি খুব দ্রুত ও সহজ এবং সস্তা হয়। যদি তা আপনার মতো মনে হয়, তবে আমরা আপনাকে ৯০% সাধারণ বিনিয়োগকারীর অংশ বলে মনে করব। একটি উদাহরণ দেয়া যাক,

আপনি কি এমন কোনও চিকিত্সকের কাছে যেতে পারেন যিনি কেবল কিছু ভিডিও দেখেছেন বা সাপ্তাহিক কর্মশালায় অংশ নিয়েছেন? অথবা আপনি কি নিজের গাড়িটি এমন কোনও ব্যক্তির দ্বারা পরিচালনা করবেন যার চালক কীভাবে গাড়ি চালাবেন সে সম্পর্কে কোনও বই পড়ে শিখেছেন । আপনি কি আপনার বাচ্চাদের কে সেই গাড়ি উঠতে দেবেন? প্রশ্ন রইল আপনাদের কাছে !

বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি অর্জন করতে তিন বা চার বছর অথবা তার বেশি সময় লাগে, যাতে আপনি নিজের পছন্দের পেশায় যেতে পারেন। একই ভাবে, শেয়ার বাজারে বাণিজ্য করা একটি ব্যবসা এবং যারা ব্যবসা তৈরির চেষ্টা করছেন তাদের কে পেশার মতো আচরণ করা দরকার। অন্য দিকে সম্মানের সন্ধান দিতে ব্যর্থ হওয়ার বড় কারণ হ'ল বেশিরভাগ বিনিয়োগকারী শেয়ারবাজারে ট্রেডিং করার সময় অর্থোপার্জনে ব্যর্থ হন। শিক্ষিত বিনিয়োগকারী হওয়ার জন্য আপনাকে অভিজ্ঞতার সাথে একটি সর্বোচ্চ স্তরের জ্ঞান একত্রিত করতে হবে। অন্যথায়, দীর্ঘ মেয়াদে আপনার সাফল্যের সম্ভাবনা খুব কম।

শেয়ার বাজার ট্রেডিং মনোবিজ্ঞান | Psychology Share Bazar



কেন আপনি ট্রেডিং করেন না , ট্রেডিং শেখা অনেক সহজ কাজ । এখানে “সহজ কাজ” অংশটি দিয়ে আপনার সাইকোলজি বোঝাচ্ছে - কারণ এটি সত্য যে ,জ্ঞানের অভাব যদি বেশিরভাগ বিনিয়োগকারী ট্রেডিংএ ব্যর্থ হয় তবে সাইকোলজি নিকটে আসে।

একজন বিনিয়োগকারী মনোভাব বা সাইকোলজি কেবলমাত্র তাদের ট্রেডিং এর উপর নির্ভর করে না । এটি নির্ভর করে যে , কীভাবে আপনি শেয়ার বাজারেকে দেখছেন।

ভয় ও লোভে এবং আবেগ তাড়িত ট্রেডিং বিনিয়োগকারীদেরকে একই ভাবে চালিত করে । সঠিক শিক্ষা ব্যতীত এই আবেগগুলি প্রায়শই প্রশস্ত হয়ে যায়। যা ট্রেডিং ব্যয়বহুল ভুলের দিকে পরিচালিত করে।

আপনার যদি খুব বেশি অর্থ না থাকে তবে আপনি শেয়ার বাজারের সাথে আরও আবেগের সাথে যুক্ত হন এবং যেমন এটি হারাতে না হয়। অতএব, যদি আপনার ট্রেড আরও কিছুটা ভুল পথে যায় তবে অর্থ হারানোর ভয়ে আপনার প্রায়শই দুর্বল সিদ্ধান্ত নেন ফল স্বরূপ ক্ষতির দকে ধাবিত হয় ।

কিছু ব্যক্তি রয়েছেন যারা প্রতিদিন তাদের ট্রেডগুলি দেখে বাজারের একটি মাইক্রো ভিউ গ্রহণ করে । তারা স্বল্প-মেয়াদী বাজারের অস্থিরতার ভিত্তিতে তাদের সিদ্ধান্ত নেয় ।যার কারণে বড় ধরনের লোকসানের সম্মুখীন হয়। যার ফলশ্রুতিতে মূলধন বা মুনাফা ফিরে পাওয়ার চেষ্টায় বাজারে তারা ওভার ট্রেডিংয়ের মত আরও বড় পাপের দিকে পরিচালিত করে।

শেয়ার বাজারে ট্রেডিং ক্ষেত্রে যারা নতুন তারা লাভ হারিয়ে যাওয়ার ভয়ে খুব তাড়াতাড়ি লাভজনক ট্রেডগুলি ত্যাগ করে । আর তাদের এই ভুল গুলি হতাশাকে আরও বাড়িয়ে তোলে।

“তোমার সময়ের নিয়ন্ত্রণ যেন তোমার হাতেই থাকে; আর যতক্ষণ তুমি ‘না’ বলা না শিখছ, ততক্ষণ এটা সম্ভব নয়। অন্য কাউকে তোমার জীবনের পথ ঠিক করতে দিও না”
- ওয়ারেন বাফেট

যারা ভয়ে ট্রেডিং করতে চায় তাদের মধ্যে সবচেয়ে বড় শত্রু হল লোভ । আবার লভের চেয়ে আরও অনেক বেশি শক্তিশালী হল আবেগ এবং এটি কেবল ব্যক্তির ট্রেডিং পরিকল্পনার উপর জ্ঞান বা আত্মবিশ্বাসের অভাব থেকেই নয়, পরিকল্পনাটি সফলভাবে কার্যকর করতে তাদের অক্ষমতা থেকেও ডেকে আনে। যখন কোন ভয় একবার ট্রেডিং স্থির হয় তখনই লাথি মারে — আমাদের শেষ বিন্দুতে নিয়ে যাওয়ার কারণ হ'ল লোভ এবং সহজে অর্থ উপার্জনের আকাঙ্ক্ষা।


আমি যতটুক জানি ততটুকু শেয়ার করার চেষ্টা করলাম আশা করছি আপনাদের ভালো লেগেছে। ( বিনিয়োগকারী.কম) শেয়ার মার্কেট সম্পর্কে গণসচেতনতা মুলক পোস্ট করার চেষ্টা করছি। শুধুমাত্র নতুন বিনিয়োগকারীদের জন্য। যারা শেয়ার ( Share Market) মার্কেটে জুয়াড়ি মনোভাব নিয়ে বিশ্লেষণ করেন তাদের থেকে যত দূরে থাকবেন ততোই ভালো। একটি কথা সবসময় মনে রাখবেন "অর্থ আপনার সিদ্ধান্ত আপনার"

গুগল প্লে স্টোর থেকে শেয়ার বাজার সম্পর্কে সেরা বিনিয়োগকারী.কম মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন:

বিনিয়োগকারী .কম বাংলাদেশে সর্বপ্রথম পুজিবাজার সম্পর্কিত একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট - আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন!বিনিয়োগকারী.কম এখন ইউটিউবে!নিয়মিত ক্যাপিটাল মার্কেট বিষয়ক ভিডিওগুলো পেতে Biniogkari ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন !এই লিঙ্কে চলে যান : Biniogkari সাবস্ক্রাইব বাটনটি হিট করুন











No comments:

Post a Comment

আমরা প্রশংসনীয় মূল্যবান মন্তব্য। দয়া করে স্প্যাম করবেন না